গুগল হেল্পফুল কন্টেন্ট আপডেট

গুগল হেল্পফুল কন্টেন্ট আপডেটটি নতুন সংকেত দিয়েছে, তা হচ্ছে ইউজারদের সন্তুষ্ঠির জন্য মান-সম্মত কন্টেন্ট তৈরী করতে হবে। গরু’র রচনার সময় শেষ। সেই সাথে এটি বিশ্বব্যাপী সমস্ত ভাষার জন্য কাজ করেছে।

গুগল হেল্পফুল কন্টেন্ট আপডেট 5 ডিসেম্বর 2022 প্রকাশ করেছিল এবং বলেছিল যে, এটি সম্পূর্ণ হতে দুই সপ্তাহ পর্যন্ত সময় লাগতে পারে এবং তা শেষ হয়েছে।

গুগল বলেছে যে, গুগল হেল্পফুল কন্টেন্ট আপডেটটি সার্চ ইঞ্জিনে ভাল রাঙ্কিংয়ের জন্য সুন্দর ভাবে তৈরি করা হয়েছে যা, ইউজারদের মনতুষ্ঠ করবে এমন সব কন্টেন্ট কে রাঙ্ক করাবে এবং তথ্যহীন, অনুপযোগী, নিম্ন-মানের কন্টেন্ট সার্চ ইঞ্জিনে যেন উচ্চ রাঙ্ক না করে তা নিশ্চিত করতে সহায়তা করবে।

সুতরাং আপনি যদি সার্চ ইঞ্জিনের দৃশ্যমানতা এবং ট্র্যাফিক পাওয়ার জন্য কন্টেন্ট লিখে থাকেন, তাহলে আপনি এই গুগল হেল্পফুল কন্টেন্ট আপডেট দ্বারা ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারেন।

গুগল হেল্পফুল কন্টেন্ট আপডেট সম্পর্কে বিস্তারিত

  • আপডেটের নাম: গুগল হেল্পফুল কন্টেন্ট আপডেট।
  • আপডেটের ধরণ: অনেকে বলছেন যে, এটি একটি মূল আপডেট, কিন্তু না। এটি যাস্ট কন্টেন্ট আপডেট।
  • শুরুর তারিখ: এটি 5 ই ডিসেম্বর 2022 শুরু হয়েছিল।
  • আপডেট শেষ: 12/01/2023।
  • টার্গেট: যে কন্টেন্ট গুলো মানুষের উপকারের স্বার্থে প্রকাশিত ছিল সেগুলোকে চিহ্নিত এবং রাঙ্ক প্রদান।
  • শাস্তি: গুগল নির্দিষ্ঠ ভাবে শাস্তি উল্লেখ করেনি তবে এই আপডেটটি এটি দ্বারা আঘাতকৃত সাইটগুলো পূর্বের থেকে অনেকটা ডাউন এবং ভিজিটর কমে গেছে। ধারণা করা হচ্ছে এটাই শাস্তি।
  • সাইটওয়াইড: এটি একটি সাইটওয়াইড অ্যালগরিদম, তাই পুরো সাইটটি এই আপডেটের দ্বারা প্রভাবিত হবে।
  • ক্লাসিফায়ার: এটি গুগলের ক্লাসিফায়ারকে উন্নত করে এবং যা ভাল-মন্দ কন্টেন্ট যাচাই-বাচাই সহজতর হয়।
  • ডি-ইনডেক্স: এই আপডেট দ্বারা ভূক্তভোগী সাইটগুলোর কন্টেন্ট ডি-ইনডেক্স হতে পারে।
  • বিশ্বব্যাপী এবং সমস্ত ভাষা: এটি আর শুধু বাংলা বা ইংরেজি ভাষার জন্য নয়, এটি এখন সমস্ত ভাষা এবং বিশ্বব্যাপী।
  • কিওয়ার্ড লস: এই আপডেট দ্বারা ভূক্তভোগী সাইটগুলোর কিওয়ার্ড সার্প থেকে হারিয়ে যাবে।
  • প্রভাব: এই আপডেটের দ্বারা কত শতাংশ সার্প প্রভাবিত হয়েছে তা গুগল আমাদের বলবে না তবে ধারনা করা হচ্ছে এটি “অর্থপূর্ণ”। এছাড়াও এটি অনলাইন-শিক্ষামূলক উপকরণ, বিনোদন, কেনাকাটা এবং প্রযুক্তি-সম্পর্কিত কন্টেন্টের জন্য আরও বেশি অনুভূত হবে।
  • রিফ্রেশ: গুগল ক্রমাগত অ্যালগরিদমের স্কোর আপডেট করে কিন্তু সময়সীমা এবং বৈধতার সময়কাল রয়েছে। এমনটি যদি হয় যে, আপনি অপরাধ করেন নি তবুও আপনাকে অপরাধী বানানো হয়েছে:-) তবে এই আপডেট থেকে রিফ্রেশ করতে গুগলের বেশ কয়েক মাস সময় লাগতে পারে।
  • পুনরুদ্ধার: আপনি যদি এই আপডেট দ্বারা আঘাতপ্রাপ্ত হন, তাহলে আপনাকে আপনার কন্টেন্ট খতিয়ে দেখতে হবে এবং নিচের পরামর্শগুলো মেনে আপনি ভাল ফলাফল বয়ে আনতে পারেন।

আমাকে একটি বিষয় ভাল লাগছে যে, আমার একজন কম্পিটিটর ছিল। যে কিনা কিওয়ার্ড স্টাফিং করে গরু’র রচনা:-) লিখেও টপে ছিল। তা দেখে আমাকে খুব খারাপ লাগতো এবং অসহায়বোধ করতাম। মনে মনে ভাবতাম এত ভাল কন্টেন্ট দিয়েও তাকে বিট করতে পারছিনা। কিন্তু সময়ের কি পরিহাস, তার সাইট এখন চাঁদের দেশে আর আলহামদুলিল্লাহ আমার সাইট এখন টপে।

মন্তব্য

গুগল বলেছে যে, “এটি একটি নিম্ন-মানের কন্টেন্ট হ্রাস করার জন্য একটি চলমান প্রচেষ্টা এবংসার্চ ইঞ্জিনে খাঁটি এবং দরকারী কন্টেন্ট খুঁজে পাওয়া সহজ করে তোলে।”

  • যেহেতু গুগল ক্লিয়ারলি হেল্পফুল কন্টেন্ট এর কথা বলছে সেহেতু আমাদের সেভাবেই কন্টেন্ট পাবলিশ করতে হবে।
  • আপনি যদি এই আপডেটের দ্বারা আঘাত পেয়ে থাকেন, তবে কিছুদিন অপেক্ষা করুন।
  • নিয়মিত সার্চ কন্সোল লক্ষ করুন।
  • যদি দেখেন যে কোন ভাবেই রিফ্রেস হচ্ছে না তবে সাইট অডিট করুন।
  • টেকনিক্যাল কোন ইস্যু থাকলে তা সমাধান করুন।
  • স্পাম লিংক আপডেট কে ফলো করে প্রয়োজনে লিংকবিল্ডিং করুন।
  • প্রয়োজনে কন্টেন্টে আরো ইন্যেফা যোগ করুন।
  • আপনি যদি সবকিছু ঠিকঠাক করেন এবং সময়ের সাথে সাথে আপনার কন্টেন্ট আপডেট করেন তবে এটি স্বাভাবিক হতে কয়েক মাস সময় লাগতে পারে।
  • অনেক নতুন ব্লগার ভাই-বোন আছেন যারা এখনও ভয়েস টাইপিং ও ট্রান্সলেটর ব্যবহার করে কন্টেন্ট লিখে থাকেন। আপনারা এবার ক্ষান্ত হন। E-E-A-T আপডেট সহ রিসেন্ট আপডেট গুলো ফলো করেন। ম্যানুয়ালী কন্টেন্ট লেখার চেষ্ঠা করেন।

Leave a Comment